জানুয়ারী 31, 2023

Disha Shakti News

New Hopes New Visions

‘গুয়াহাটির চিড়িয়াখানায় বাঘকে গোমাংস নয়’

নিজস্ব সংবাদদাতা : এবার চিড়িয়াখানার বাঘ-সিংহকে গরুর মাংস দেওয়ার বিরুদ্ধে রাস্তায় নামল বিজেপি। মানুষ তো নয়ই। পশুরাও খেতে পারবে না গোমাংস। এই নিয়ে গুয়াহাটিতে হইচই বাঁধিয়ে দিলেন বিজেপি নেতা সত্যরঞ্জন বোরা। তাঁর দাবি, চিড়িয়াখানাতেও বাঘ, সিংহকে গোমাংস দেওয়া যাবে না। প্রতিবাদে গুয়াহাটির চিড়িয়াখানার দরজা আটকে দাড়িয়ে রইলেন নেতা এবং তাঁর সমর্থকরা। চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষের আবেদনে হস্তক্ষেপ করে পুলিশ। হঠিয়ে দেয় প্রতিবাদীদের। চিড়িয়াখানার জন্তুদের জন্য মাংস নিয়ে দুটি গাড়ি ঢুকছিল সে সময়। ওই দুটি গাড়িকেও আটকে দেওয়া হয়। অসমের বন দফতরের সচিব তেজস মারিস্বামী বলেন, ‘চিড়িয়াখানার জন্তুদের জন্য আনা মাংস বোঝাই গাড়ি আটকে দেওয়া হয়। খবর পেয়ে আমরা সঙ্গে সঙ্গে পুলিশকে জানাই। তারপর তাঁরা গিয়ে গাড়ি দুটিকে চিড়িয়াখানায় ঢোকার ব্যবস্থা করে। ১৯৫৭ সালে গুয়াহাটির মধ্যভাগে ১৭৫ হেক্টর জমির উপর এই চিড়িয়াখানা তৈরি হয়। এই মুহূর্তে এই চিড়িয়াখানায় আটটি বাঘ, তিনটি সিংহ এবং ২৬ টি লেপার্ড রয়েছে। বিজেপি নেতা সত্যরঞ্জন বোরার প্রশ্ন , ‘হিন্দু সমাজে আমরা গরু সংরক্ষণের দিকে গুরুত্ব দিই। কিন্তু চিড়িয়াখানায় এই গোমাংসই মাংসাশিদের খাওয়ানো হয়। কেন গরু? অন্য কোনও পশুর মাংস কেন দেওয়া হচ্ছে না?’ তার পর নিজেই প্রস্তাব পেশ করেন। গুয়াহাটি চিড়িয়াখানায় সম্বর হরিণের সংখ্যা খুব বেড়ে গেছে। বোরার দাবি, এই সম্বর হরিণদের মাংস দেওয়া হোক বাঘেদের।প্রস্তাব শুনেই খারিজ করেছেন ডিভিশনাল ফরেস্ট অফিসার তেজস মারিস্বামী। তিনি জানিয়েছেন, আইন অনুযায়ী চিড়িয়াখানার আবাসিক পশুদের মাংস অন্য মাংসাশি প্রাণীকে খাওয়ানো যায় না। তাছাড়া সম্বর হরিণ বন্যপ্রাণী। বন্যপ্রাণীকে হত্যা করা যায় না।গো মাংস নিয়ে দেশে কম ঘটনা ঘটেনি গত কয়েক বছরে। গণ পিটুনি, খুন, বাড়ি ভাঙচুর- কত কীই না হয়েছে। এবার চিড়িয়াখানার বাঘ-সিংহকে গরুর মাংস দেওয়ার বিরুদ্ধে বিক্ষোভ তালিকায় নতুন সংযোজন।

Share this News
error: Content is protected !!