মে 26, 2022

Disha Shakti News

New Hopes New Visions

জাগ্রত হোক নারী শক্তি

Reported on – 10th October 2020

যুগে যুগে, কালে কালে নারীকে অবলা বলে ব্যাঙ্গ আর কটাক্ষ করে এসেছে পুরুষ। নিজের পুরুষ সত্তাকে বিকশিত করার জন্যে সেই আদিম যুগ থেকেই নারীকে অঙ্কশায়িনী করেছে তারা। কিন্তু, নারী যে আবার নিয়ন্তা তার প্রমান রেখেছেন বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্র পরিচালকরা। ইন্দিরা গান্ধী, গোলডা মায়ার, মার্গারেট থাচেররা তার প্রমান। তবু, এঁরা ব্যাতিক্রমী বলে চিহ্নিত হন. কারণ, পুরুষ মেনে নিতে পারে না নারীর আধিপত্য. সেমিনারে নারী পুরুষ সমানাধিকারের ভাষণ দিয়ে হাততালি কুড়িয়ে বাড়ি ফেরার পর ভাতের থালাটা লেগে যাওয়ার জন্যে এই পুরুষই আবার স্ত্রীকে চেলা কাঠ দিয়ে প্রহার করেন। সেমিনারের ভাষণের কথা ভুলে। আসলে সমাজ শুরুর দিন থেকে নারীর জায়গা নির্দিষ্ট হয়েছে অন্তঃপুরে. নয়তো সেই চর্যাচর্য বিনিশ্চয়ে লেখা হয় —

ঘরে আখ্যা বাহিরে রানন্ধে, অল্প কেশ ফুলাইয়া বানন্ধে. — আসলে, নারী ভোগের বস্তু ছাড়া আর কোনওদিন অন্য কিছু বলে বিবেচিত হয়নি, তাও, আবার একদেশদর্শিতায় ভরা এক বিবেচনা. দয়িতের সঙ্গে উপগত হয়ে নিজের জৈবিক তৃপ্তি নিবারণের পর পাশ ফিরে নিদ্রাদেবীর আরাধনা করাটাই শ্রেয় বলে মনে করেছে পুরুষ. নারীর তৃপ্ত হওয়ার অধিকার নেই ভেবেই আত্মপ্রসাদ অনুভব করেছে. অবদমনের স্পৃহায় পুরুষ যত উল্লসিত হয়েছে নারী ততটাই সংকুচিত হয়েছে।

দ্বিতীয় বিশ্ব যুদ্ধের পর নারী যথার্থ সমানাধিকারের দাবিতে সরব হয়. বিভিন্ন ক্ষেত্রে তারা পুরুষদের সঙ্গে পাঞ্জা লড়ে । জাগরণের গান শোনা যায় জামাতারায়, জাগদলপুরে, প্রত্যন্ত প্রান্তে.

নারী আজ জাগছে. শুধুমাত্র পুরুষের বিনোদনের খেলনা হওয়ার জন্যে এই নারী জন্ম নয় তা বুজতে শিখেছে আজকের নারী. তাও অনেক কাজ বাকি।

দিশা এবং শক্তি নির্ধারণ করতে হবে নারীর জন্যে, আর এই দিশা শক্তিই তৈরি করবে নতুন সোপান।

নজর রাখুন দিশা শক্তি নিউজ -এ ( নতুন আশা – নতুন দিশা )

Special Report by
জয়ন্ত চক্রবর্তী
বিশিষ্ট সাংবাদিক

Share this News
error: Content is protected !!