মে 21, 2022

Disha Shakti News

New Hopes New Visions

টালা ব্রিজের প্রাথমিক নকশায় অনুমোদন রেলের


নিজস্ব সংবাদদাতা : মাঝেরহাট ব্রিজ ভেঙে পড়ার পরেই শুরু হয় কলকাতার বিভিন্ন সেতুর স্বাস্থ্য পরীক্ষার কাজ। সেই মতো টালা ব্রিজেরও স্বাস্থ্য পরীক্ষা হয়। একাধিক জায়গায় ফাটল ধরা পড়ায় পুরনো সেতু ভেঙে নতুন সেতু তৈরির পরামর্শ দেন বিশেষজ্ঞরা। পরামর্শ মেনে, চলতি বছরের ৩১ জানুয়ারি মাঝরাত থেকে টালা ব্রিজে যান চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়। এরপর শুরু হয় ভাঙার কাজ। বর্তমানে ভাঙার কাজ প্রায় সম্পূর্ণ। টালা ব্রিজ বন্ধ হওয়ায় সবথেকে সমস্যায় পড়েছেন উত্তর কলকাতা ও উত্তর শহরতলির বাসিন্দারা। ঘুরপথে যাতায়াত করতে হচ্ছে যাত্রীদের । অভিযোগ, যে রাস্তা ২০ মিনিটে যাওয়া যেত সেটাই ১ ঘণ্টা লেগে যাচ্ছে। প্রশাসন সূত্রে খবর, কাজে সমন্বয় রাখতে রেল ও রাজ্য সরকারের প্রতিনিধিদের নিয়ে তৈরি হয়েছে কমিটি। চূড়ান্ত নকশা তৈরি করে পাঠানো হয় রেলের কাছে। করোনা ও লকডাউনের কারণে সেতু তৈরির কাজ কিছুটা শ্লথ হয়ে গিয়েছিল। তবে রেল প্রাথমিক নকশা অনুমোদন করে দেওয়ার পর কাজে গতি আরও বাড়বে, তেমনটাই মনে করছেন পূর্ত দফতরের ইঞ্জিনিয়াররা। পূর্ব রেলের তরফে টালা ব্রিজের প্রাথমিক নকশা অনুমোদনের বিষয়টি জানানো হয়। লিখিত ছাড়পত্রও পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে রাজ্যকে। সূত্রের খবর, টালায় এই রোড ওভারব্রিজটি ৬টি স্তম্ভের উপরে তৈরি হবে। সেতু নির্মাণের বিস্তারিত নকশা নিয়ে ১৪ ডিসেম্বর রাজ্য ও রেলকর্তাদের মধ্যে বৈঠক হয়। কারণ, টালা ব্রিজের দুশো মিটার অংশ রেললাইনের উপর। সেক্ষেত্রে নকশা চূড়ান্ত করার আগে রেলের অনুমোদন দরকার। দফায় দফায় রাজ্য সরকারের সঙ্গে বৈঠক ও পর্যবেক্ষণ শেষে চার লেনের ৬১০ মিটার দীর্ঘ টালা সেতুর নয়া নকশা অনুমোদন করেছে পূর্ব রেল । নয়া সেতুটি নির্মাণে রাজ্যের খরচ হচ্ছে প্রায় ২৬০ কোটি। রাজ্যের পূর্তমন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস জানিয়েছেন, ‘প্রথম দফায় নকশা অনুমোদন দিয়েছে রেল, এখনও অনেকগুলি পর্যায়ে রেলের সম্মতি লাগবে। ওয়ার্ক অর্ডারে মাত্র দেড় বছর হাতে পেয়েছি। রেল সহযোগিতা করলে আশা করছি, নির্দিষ্ট সময়ের আগেই নয়া সেতু খুলে দিতে পারবেন মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী।’

Share this News
error: Content is protected !!