জানুয়ারী 28, 2023

Disha Shakti News

New Hopes New Visions

দিল্লির বায়ুদূষণ এখনও চরম দশায়


নিজস্ব সংবাদদাতা : আগের সব রেকর্ড ভেঙে এবার সর্বাধিক দূষণের সাক্ষী দিল্লি। মনে হচ্ছে, গোটা শহরটাকে যেন ধূসর ধুলোর চাদরে মুড়ে দেওয়া হয়েছে।দূষণের প্রভাব পড়েছে যমুনার জলেও। যমুনার জল বিষাক্ত সাদা ফেনায় ঢেকে গিয়েছে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ডিটারজেন্ট গোলা জল সহ কারখানা থেকে নির্গত দূষিত পদার্থের কারণে যমুনার জলে ফসফেট অত্যধিক মাত্রায় হয়েছে। তার ফলেই জলে এই সাদা ফেনা উপচে উঠেছে। লকডাউনে কলকারখানা বন্ধ থাকায় যমুনার জল পরিষ্কার হয়ে গিয়েছিল। আবার তা দূষিত হয়ে উঠেছে বলে আক্ষেপ বিশেষজ্ঞদের। দূষণে দৃশ্যমানতার অভাবে ৩৭টি বিমানের পথ ঘুরিয়ে দেওয়া হয়। এই অবস্থায় প্রধানমন্ত্রীর দফতরে পর্যালোচনা বৈঠক হয়। এক বিবৃতিতে পিএমও জানিয়েছে, ক্যাবিনেট সচিব দিল্লি সহ তিন রাজ্যের দূষণের অবস্থার উপর নজর রেখেছেন। তিনিই বিষয়টি দেখভাল করবেন। তিন রাজ্যের মুখ্যসচিবদেরও গুরুত্বসহকারে এই বিষয়ে নজরদারির কথা বলা হয়েছে। রবিবার বিকেলে হাল্কা বৃষ্টি হলেও দিল্লির বায়ুদূষণে তাতে কোনও রেহাই মেলেনি। সোমবারও বায়ুদূষণ অত্যন্ত খারাপ স্তরে ছিল। দিল্লি এবং সংলগ্ন অঞ্চলে গড় একিউআই সোমবার ছিল ৪৯০। একিউআই ০-৫০ থাকলে বাতাস স্বচ্ছ। আর ৪০০-৫০০ থাকলে অত্যন্ত খারাপ। দিল্লির গড় একিউআই গত শনিবার দীপাবলির রাত থেকেই ৪০০-৫০০-র ঘরে ঘোরাফেরা করছে। জাতীয় পরিবেশ আদালত বা এনজিটি-তে দায়ের করা রিপোর্টে কেন্দ্রীয় দূষণ নিয়ন্ত্রণ বোর্ড বা সিপিসিবি বলেছে, গত বছরের তুলনায় এবছর দীপাবলির পর দিল্লির বায়ুদূষণ আরও চরম আকার নিয়েছে। তার সঙ্গেই পড়শি রাজ্যগুলির নষ্ট ফসল পোড়ানোয় দূষণ আরও ভয়ানক রূপ নিয়েছে।দিল্লির কেজরিওয়াল সরকার ‘হেল্থ আ্যাডভাইজারি’ জারি করেছে। সেখানে দিল্লিবাসীকে আবেদন জানিয়ে বলা হয়েছে খুব প্রয়োজন ছাড়া বাইরের কাজ করার প্রয়োজন নেই। মুখে যেন এন-৯৫ মাক্স পরা হয়।

Share this News
error: Content is protected !!