জানুয়ারী 28, 2023

Disha Shakti News

New Hopes New Visions

ভারতীয় জওয়ানদের জন্য শীতের পোশাক পাঠালো আমেরিকা

নিজস্ব সংবাদদাতা : চিনের ফৌজ ছাড়াও লাদাখ সীমান্তের সবচেয়ে বড় প্রতিকূলতা হল সেখানকার প্রাকৃতিক পরিবেশ। নভেম্বরের মাঝামাঝি গোটা প্যাঙ্গং হ্রদ সংলগ্ন এলাকা বরফে ঢেকে যাবে। ভারতের সেনা জানাচ্ছে, সবচেয়ে বেশি চিন্তা দৌলত বেগ ওল্ডি ও দেপসাং সমতলভূমি নিয়ে। কারণ দেপসাং ভ্যালিতে এখনও ক্যাম্প খাটিয়ে রয়েছে লাল সেনা, সেখানে টহল দিতে পারছে না ভারতের বাহিনী। অন্যদিকে, দৌলত বেগ ওল্ডি লাগোয়া আকসাই চিনে সামরিক কাঠামো বানাচ্ছে চিন। তৈরি হচ্ছে হেলিপ্যাডও। পাহাড়ি খাঁজের বিপদসঙ্কুল পরিবেশে শত্রুসেনার মোকাবিলা করার জন্য দিনরাত জাগছেন ভারতীয় জওয়ানরা। সেই সঙ্গেই হাড়হিম ঠাণ্ডায় পাহাড়ি এলাকা হয়ে উঠেছে আরও দুর্গম। লাদাখে শীত পড়লেই তাপমাত্রা নেমে যায় হিমাঙ্কের প্রায় ৪০ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেড নিচে। এই তাপমাত্রায় পাহাড় চূড়োয় টহলদারির জন্য বিশেষ শীত পোশাকের প্রয়োজন পড়ে। ভারতীয় সেনার জন্য এমন শীতের পোশাক ও অন্যান্য সরঞ্জামের জন্য চার বছর আগেই চুক্তি হয়েছিল আমেরিকার সঙ্গে। সম্প্রতি ভারত-আমেরিকা ২+২ বৈঠকের পরে দুই দেশের সামরিক চুক্তিকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার উপর গুরুত্ব দেওয়া হয়। সূত্রের খবর, প্রথম দফায় ভারতীয় সেনার জন্য ৬০ হাজার শীতের পোশাক পাঠিয়ে দিয়েছে আমেরিকা। তবে এই মুহূর্তে লাদাখ সীমান্তে মোতায়েন রয়েছেন প্রায় ৯০ হাজার জওয়ান। জানা গিয়েছে, আরও ৩০ হাজারের জন্য দ্বিতীয় দফায় পোশাক চলে আসবে খুব তাড়াতাড়ি।অতিরিক্ত বাহিনীর জন্য শীতের রসদ নিয়ে যাওয়ার পাশাপাশি পাহাড়ি এলাকায় দিনে ও রাতে নজরদারি চালানোর জন্য আধুনিক প্রজন্মের দুটি অ্যাডভান্সড লাইট হেলিকপ্টার (এএলএইচ) লাদাখে পাঠিয়েছে ভারতীয় বায়ুসেনা। পাহাড়ি ঠান্ডায় ও প্রতিকূল পরিবেশে রাতেও নজরদারি চালানোর ক্ষমতা আছে এই কপ্টারের।
Report by নিজস্ব সংবাদদাতা
Reported on – 05/11/2020

Share this News
error: Content is protected !!