মে 21, 2022

Disha Shakti News

New Hopes New Visions

শুভেচ্ছা বার্তা বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা – র তরফ থেকে

বিশ্বের বৃহত্তম গণটিকাকরণ প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে ভারতে, তাই শুভেচ্ছা বার্তা এল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা -র তরফ থেকেও। শনিবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী প্রথম দফার গণটিকাকরণ কর্মসূচির সূচনা করার পরই হু -র দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার অফিস থেকে টিাকরণের একাধিক ছবি পোস্ট করে শুভেচ্ছা জানানো হয়।

টুইট বার্তায় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তরফে বলা হয়, “ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী কোভিড-১৯ টিকাকরণ কর্মসূচির উদ্বোধন করলেন। প্রথম দফায় দেশের তিন কোটি স্বাস্থ্যকর্মী ও প্রথম সারির যোদ্ধাদের টিকা দেওয়া হবে।”

পরবর্তী টুইটে বলা হয়, “প্রথম দফার টিকাকরণ কর্মসূচিতে এক কোটি স্বাস্থ্যকর্মী, দুই কোটি প্রথম সারির যোদ্ধা এবং ২৭ কোটিরও বেশি নাগরিক, যাদের বয়স ৫০ বছরের উর্দ্ধে বা কো-মর্ডিবিটি রয়েছে, তাঁদের ভ্যাকসিন দেওয়া হবে।”

প্রথম দিনের কর্মসূচির বিবরণী দিয়ে আরও একটি টুইটে হু-র তরফে জানানো হয়, দেশের ৩০০৬ টি কেন্দ্রে ১০০ জন করে ব্যক্তিকে প্রথম দিনে করোনা টিকা দেওয়া হবে।

শনিবার সকাল সাড়ে ১০টায় ভার্চুয়াল মাধ্যমে টিকাকরণ কর্মসূচির উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। বেলা ১১টায় দেশের প্রথম করোনা টিকা নেন দিল্লির এইমস -র সাফাইকর্মী মনীশ কুমার। টিকা নেওয়ার পর নিজের অনুভূতি সম্পর্কে তিনি বলেন, “করোনার টিকা নেওয়া সম্পর্কে আমার মনে কোনও দ্বিধা ছিল না। টিকা নিয়ে ভয় পাওয়ার কোনও কারণ নেই।”

আপাতত দেশে দুটি করোনা টিকা অনুমোদন পেয়েছে। দ্বিতীয় দফার টিকাকরণে অংশগ্রহণের জন্য আরও ছটি সংস্থার উৎপন্ন টিকা ছাড়পত্রের আবেদন করেছে। অনুমোদনপ্রাপ্ত “কোভিশিল্ড” সম্পর্কে কোনও সংশয় না থাকলেও তৃতীয় দফার ট্রায়াল সম্পূর্ণ করার আগেই ছাড়পত্রপ্রাপ্ত কোভ্যাকসিনের সুরক্ষা ও কার্যকারীতা নিয়ে সাধারণ মানুষের মনে তৈরি হয়েছে সংশয়।

Report by web desk
Reported on – 17/01/2021

Share this News
error: Content is protected !!