জানুয়ারী 27, 2023

Disha Shakti News

New Hopes New Visions

শেষ হল রাজ্য খাদি মেলা , মেলায় বিক্রি প্রায় ৬ কোটি

রাহুল গুপ্ত , কলকাতা ( প্রতিনিধি ) , মানসী ঘোষ ( সহ প্রতিনিধি ) , চিত্রগ্রাহক : কুন্তল মন্ডল

শুরু হয়েছিল ৩০ ডিসেম্বর ২০২২। শেষ হল ১৬ জানুয়ারী । শেষ হলো ২০২২-২৩ রাজ্য খাদি মেলা। এবার প্রথম থেকেই ছিল জমজমাট এই মেলা । যেহেতু গত বছর করোনার কাঁটায় বিদ্ধ ছিল মেলা , তাই এইবার ভালো খাদি মেলা করাই ছিল রাজ্য খাদি দপ্তরের কাছে আসল চ্যালেঞ্জ। বিক্রেতারা খুশি ভালো বিক্রি হওয়ায়।

প্রতিবারের মত এইবারও ক্রেতারা এলেন কলকাতা এবং কলকাতার বাইরে থেকেও। বহু মানুষ অপেক্ষা করে থাকেন রাজ্য খাদি মেলার জন্য। এইবারও বহু প্রবাসী বাঙালি এসেছিলেন মেলায় তাঁদের মনের মতো খাদির পোশাক কিংবা ঘর সাজানোর জিনিস কিনতে। এর সঙ্গে বাড়তি পাওনা ছিল মেলায় পিঠে থেকে পুলি , কিংবা জয়নগরের মোয়ার। সঙ্গে হাতের তৈরী নানান ধরণের জিনিসপত্র। শীতের ঠান্ডার পারদ ওঠা নামা করলেও , যত দিন গড়িয়েছে মেলার বিক্রির পারদ বেড়েছে , এমনটাই বলছেন বিক্রেতারা। সঙ্গে ক্রেতারাও উচ্ছসিত ছিলেন মেলাকে কেন্দ্র করে , অনেকেই দু থেকে তিনবার মেলায় এসেছিলেন। আবার হোক আগামী অর্থ বর্ষে খাদি মিলে এই এডিএফ গ্রাউন্ডে ক্রেতা কিংবা বিক্রেতা সবার মুখেই এক দাবি , এক আবদার রাজ্য খাদি দপ্তর এবং মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে।

এই মেলা থেকে বিক্রেতাদের সার্টিফিকেট দিয়ে সম্মান জানালো রাজ্য খাদি দপ্তর। খাদি মেলার মঞ্চ থেকে ভালো বিক্রি হওয়ার জন্য খাদি দপ্তরকে ধন্যবাদ জানালেন বিক্রেতারা

উল্লেখ্য এইবার খাদি মেলায় মোট ১১৩ টি ষ্টল ছিল । সুতি , রেশম , তসর , গরদ , কেটিয়া , মসলিন , পশম প্রভৃতি পোশকের বিপুল সমাহার ছিল এইবারের খাদি মেলায়। পাশাপাশি ছিল গ্রামীণ শিল্পের নানান সামগ্রী। কাঠের পুতুল , বর্ধমান এবং বীরভুমের কাঁথাস্টিচ , মুর্শিদাবাদের রেশম বস্ত্র , মেদিনীপুরের মাদুর , কোচবিহারের শীতল পাটি ইত্যাদি নানারকম সামগ্রীর স্টল নিয়ে সেজে উঠেছিল এইবারের খাদি মেলা।

খাদিকে বাঁচাতে রাজ্যের বিভিন্ন জেলায় রাজ্য সরকার বিভিন্ন প্রকল্পের কাজ শুরু করেছে। পুরুলিয়া জেলায় বলরামপুর ব্লকে পলাশ ফুল থেকে আবির তৈরী প্রকল্প , বাঁকুড়া জেলার ছাতনা ব্লকে প্রজেক্ট পটচিত্র , মুর্শিদাবাদে জেলার অন্তর্গত ভগবানগোলা – ১ ব্লকে ভাগীরথী হানি প্রকল্প , অন্যদিকে দার্জিলিংয়ে মধু প্রক্রিয়াকরণের প্রকল্পের কাজ চলছে।

পাশাপাশি রাজ্যের মানুষের কাছে কম দামে খাদির দ্রব্য পৌঁছে দেওয়ার জন্য চালু হয়েছে জনতা খাদি প্রকল্প।

সরকারি ভাবে মঞ্চ থেকে মেলার আনুষ্ঠানিক সমাপ্তি ঘোষণা করলেন রাজ্য খাদি দপ্তরের মুখ্য কার্যনির্বাহী আধিকারিক। আনুমানিক ৬ কোটি টাকার বিক্রি হয়েছে এই মেলায় , যা বাংলার অর্থনীতির জন্য ইতিবাচক , বললেন দিশা শক্তি নিউজ কে খাদি দপ্তরের মুখ্য কার্যনির্বাহী আধিকারিক নিমাই চাঁদ হালদার।

FOLLOW US : Face Book , Youtube Address : dishashaktinews // Portal Address : www.dishashaktinews.com

Share this News
error: Content is protected !!